রবিবার | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | হেমন্তকাল | ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

কবর থেকে তুলে সহবাসের চেষ্টা

১৪ বছরের মেয়ের দেহ নদীর ধারে কবর থেকে তুলেছিলেন। তারপর সেই দেহের সঙ্গে করছিলেন সহবাসের চেষ্টা। সম্প্রতি ৫০ বছরের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের আসামের ধেমাজি জেলার সিলাপাথর পুলিশ স্টেশনের অন্তর্গত দেমগাও এলাকায়।

জানা গেছে, ১৭ মে রাতে রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হয় ১৪ বছরের ওই নাবালিকার। তারপর পরিবারের লোকজন তার দেহ সিমেন নদীর ধারে কবর দেয়। পরের দিন ১৮ মে বিকালে জেলেদের একটি দল সেখানে গিয়েছিল মাছ ধরতে। তাঁরাই দেখতে পান এক ব্যক্তি একটি মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা করছে। সেখানে গিয়ে তাঁরা বুঝতে পারেন সেটি একটি মৃতদেহ। আকান শইকিয়া নামের ওই ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন তারা।

পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জানান, সহবাস করার উদ্দেশ্যেই মেয়ের দেহ কবর থেকে তুলেছিলেন। সিলাপাথর থানার পুলিশ ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ধেমাজির ডেপুটি পুলিশ সুপার প্রদীপ কোনওয়ার জানান, লকডাউনের আগে জেল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। তার কোনও মানসিক সমস্যা নেই। রহস্যজনক মৃত্যুর পর এলাকায় রটে যায় যৌন অত্যাচারিত হওয়ার কারণেই আত্মহত্যা করেছে মেয়েটি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। খবর. আনন্দবাজার পত্রিকার।

 

বিডি রয়টার্স/

Translate »