কুষ্টিয়ায়  ভন্ড পীড়ের আস্তানা থেকে ২টি হরিণ উদ্ধার, মামলা দায়ের

কুষ্টিয়ায়  ভন্ড পীড়ের আস্তানা থেকে ২টি হরিণ উদ্ধার, মামলা দায়ের bd royters

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কল্যাণপুরে অবস্থিত ভন্ড পীর তাসের এর আস্তানা থেকে ২টি হরিণ উদ্ধার করেছে বন বিভাগ ও স্থানীয় প্র্রশাসন।

বুধবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় বন বিভাগের কর্মকর্তারা দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার শারমিন আক্তার ও দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিনের সহযোগিতায় হরিণ দুটি উদ্ধার হয়।

বন বিভাগের কর্মকর্তা আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি যে, কল্যাণপুর দরবার শরীফের ভিতরে অবৈধভাবে দুইটা হরিণ লালন পালন করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশের সহযোগিতায় হরিণ দুটি উদ্ধার করি।

এ ঘটনায় বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন ২০১৭ মোতাবেক ভন্ড পীর তাসের ও তার শ্যালক শের খান নামে মামলা করা হয়েছে । মামলার আসামী তাসেরের শ্যালক শের খানকে হাতে নাতে আটক করে দৌলতপুর থানা পু্লশি এবং ওই দরবারের কথিত পীর তাসের পলাতক রয়েছে।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন জানান, বিকেলে বন বিভাগের কর্মকর্তারা আমার কাছে সহযোগিতা চাই যে তাসের পীরের দরবারে দুইটা হরিণ অবৈধ ভাবে তারা লালন পালন করছে। আমি সেখানে অফিসার ফোর্স নিয়ে তাদের সহযোগিতায় হরিণ দুটো উদ্ধার করে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেছি।

দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার শারমিন আক্তার জানান, দরবার শরীফের মধ্যে হরিণ আছে সংবাদ দিয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তারা আমাদের সহযোগিতা চাইলে আমরা সেখানে গিয়ে দুটো হরিণ উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য গত ৬ জুন ভন্ড পীড় তাসেরের নেতৃত্বে দরবারে রাশেদ (২৮) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনায় নিহত রাশেদের বাবা সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বাদী হয়ে দরবার প্রধান তাসের সহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে দৌলতপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ ৬ জনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। তাসের সহ বাকি আসামিরা পলাতক রয়েছেন।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস