শনিবার | ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | ১৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

মাদারীপুরে প্রতারনার সময় আটক ৩

মাদারীপুর: সেনাবাহিনীর মেজর ও মেরিন অফিসার পরিচয় দানকারী নারী সহ ৩ প্রতারককে আটক করেছে মাদারীপুর সদর মডেল থানা পুলিশ।

শনিবার সকালে খোয়াজপুরের গোবিন্দপুর গ্রামের হালিম মাদবরের বাড়ি থেকে এদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন খুলনা পাইকগাছার রবিউল ইসলামের ছেলে মাসুদ পারভেজ (২৯), বরগুনার আবদুল আজিজ হাওলাদারের ছেলে শাহীন(৩২) ও শাহিনের স্ত্রী শিরিন বেগম (২৬)।

থানা সূত্রে যানা যায়, তারা উক্ত এলাকায় হালিম মাদবর (৪৫) এর ছেলে রনি হোসাইনকে (২১) চাকরি দেয়ার কথা বলে তাদের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। অভিযুক্ত মাসুদ পারভেজ নিজেকে সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্নেল (এস এস এফ) হিসেবে পরিচয় দেয় ও অভিযুক্ত শাহিন নিজেকে পরিচয় দেন মেরিন অফিসার হিসেবে এবং সাথে থাকা মেয়েটিকে পরিচয় করানো হয় শাহিনের স্ত্রী হিসেবে। তারা গত এক সপ্তাহ যাবত হালিম মাদবর এর বাড়িতে অবস্থান করে।

হালিম মাদবর এর ছেলে রনিকে এনএসআই এ চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রতারণার ফাঁদ পাতে। বিভিন্ন অজুহাতে হালিম মাদবর এর থেকে ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে এক পর্যায়ে হালিম মাদবর এর ছেলে রনি হোসাইন এর সন্দেহ হলে তিনি থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে তাদের তিন জনকে আটক করে। থানায় নিয়ে আশার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাশাবাদে তারা তাদের প্রতারনার কথা স্বীকার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ভূয়া আইডি কার্ড ও বেশ কিছু ভিজিটিং কার্ড জব্দ করা হয়।

হালিম মাদবরের ছেলে রনি হোসাইন জানায়, আমার মামা আব্দুল কায়েম বনফুল পরিবহনের ড্রাইভার, তিনি ঢাকা টু খুলনা বাস চালায়। সেই সুবাদে তার মামার সাথে পরিচয় হয় মাসুদ পারভেজের। তিনি নিজেকে লেফটেন্যান্ট কর্নেল(এস এস এফ) হিসেবে পরিচয় দেয়। একসময় আমার মামার সাথে মাসুদ পারভেজ এর সখ্যতা গড়ে উঠে।

আমাকে এনএসআই তে চাকুরির ব্যবস্থা করে দিবে বলে। পরবর্তীতে বেড়ানোর কথা বলে মাসুদ পারভেজ সহ শাহিন ও তার স্ত্রী তাদের বাড়িতে আসে। বাড়িতে এসে শাহিন নিজেকে পরিচয় দেয় মেরিন অফিসার হিসেবে। তাদের গতিবিধি দেখে আমাদের সন্দেহ হলে পুলিশকে খবর দেয় হয়। পরবর্তীতে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক তাদের করে সদর থানায় নিয়ে আসে। আমি এই তিন প্রতারকের বিচার চাই।

মাদারীপুর সদর থানার এএসআই আনিচ হোসেন বলেন, আমরা অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছে, তারা ঘটনার সাথে জড়িত। এই ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস

Translate »