ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুই ভাইয়ের লড়াই

পঞ্চগড়: দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় একই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়াই করছেন শেখ কামাল ও কামরুজ্জামান কামু নামে আপন দুই ভাই। তবে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ছোট ভাই শেখ কামাল আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন (নৌকা) পেলেও বড় ভাই কামরুজ্জামান কামু লড়ছেন স্বতন্ত্র ভাবে।

জানা গেছে, বড় ভাই কামরুজ্জামান কামু বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। বর্তমানে আওয়ামীলীগ দলের কোন পদ না পেলেও দলকে সমর্থন করেন। এদিকে ছোট ভাই শেখ কামাল আওামীলীগের মননীত নৌকা প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য হিসেবে আছেন।

তেঁতুলিয়া উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে আগামী ১১ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আপন দুই ভাইয়ের ভোটযুদ্ধ নিয়ে ইতিমধ্যে এলাকাবাসীর মাঝে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে সেই দুই ভাই-ই নির্বাচনে জয়লাভের ব্যাপারেও অনেকটা আশাবাদী।

বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন এলাকার ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ভাই-ভাইয়ের লড়াই ভোটারদের মধ্যে ব্যাপকভাবে সাড়া ফেলেছে। দুই ভাইয়ের কর্মকাণ্ড নিয়েও আলোচনা-সমালোচনার কমতি নিয়ে ভোটারদের মধ্যে। শুধু দলীয় বিবেচনায় নয়, ব্যক্তি পরিচয়ে প্রার্থীই ভোট পাবেন বলে তারা জানান।

আরো জানা গেছে, দুই ভাইয়ের মধ্যে পারিবারিক কোন্দল চলছে। ফলে কেউই কাউকে ছাড় দেয়নি। একই পরিবার থেকে দুই ভাই প্রতিদ্বন্দ্বীতা করায় বিপাকে পড়েছেন পরিবারের লোকজন, আত্মীয়-স্বজনসহ পাড়া প্রতিবেশীরা।

বিষয়টি জানার পর কথা হয় বড় ভাই কামরুজ্জামান কামুর সাথে। তিনি বলেন, গত রোববার (১৭ অক্টোবর) চেয়ারম্যান পদে সতন্ত্র ভাবে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছি। স্থানীয়দের ভালোবাসায় এবারো ভোটে নেমেছি। গত ২০১১ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলাম। গতবারও চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। মাত্র ৬৩ ভোটে পরাজিত হই। আমি এলাকার মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে ছিলাম। দীর্ঘদিন ধরে মাঠে কাজ করে যাচ্ছি।

আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনিত (নৌকা) প্রার্থী শেখ কামাল বলেন, দলীয়ভাবে আমাকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। সব পরিবারে পারিবারিক কোন্দলের থাকতেই পারে। এক বাড়িতে দুই ভাই চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি আরো বলেন, আগামী ২৬ অক্টোবরের আগ পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। আর বড় ভাই সাবেক চেয়ারম্যান হিসেবে ভোটে আসতে পারে, আর আমি আওয়ামীলীগ করায় দলীয় মনোনয় পেয়েছি।

এদিকে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা আলী হোসেন বলেন, বুড়াবুড়ি ইউনিয়নে দুই ভাই আওয়ামী লীগের প্রার্থী শেখ কামাল ও বড় ভাই স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুজ্জামান কামুসহ ছাড়াও ৮ জন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এখানে মোট ভোটার ৯১২৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৪ হাজার ৬শ এবং নারী ভোটার ৪ হাজার ৫২৬ জন।

দ্বিতীয় ধাপের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী জেলার তেতুঁলিয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ তারিখ ছিল ১৭ অক্টোবর, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ২০ অক্টোবর, বাছাইয়ের বিরুদ্ধে আপিল দায়ের ২১ থেকে ২৩ অক্টোবর, আপিলের নিষ্পত্তি ২৪ ও ২৫ অক্টোবর, প্রার্থীতা প্রত্যাহার ২৬ অক্টোবর, প্রতীক বরাদ্দ ২৭ অক্টোবর এবং ১১ নভেম্বর ব্যালট পেপারের মাধ্যেমে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস



আজকের সব খবর