এবার চাঁদে জমি কিনলেন সিলেটের সুজন

চাঁদে জমি কিনলেন

সিলেট: চাঁদে জমি কিনলেন সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার পাড়ুয়া (বদিকোনা) গ্রামের বাসিন্দা সুজন আহমেদ। বর্তমানে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সির পেটার্সনে বসবাস করছেন।

মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’ থেকে ৫৫ ডলারের বিনিময়ে এক একর জমি কিনেছেন সুজন।

জমি কেনার পর একটি বিক্রয় চুক্তিনামা, কেনা জমির একটি স্যাটেলাইট ছবি এবং জমিটির ভৌগোলিক অবস্থান ও মৌজা-পর্চার মতো আইনি নথিও সুজনের কাছে হস্তান্তর করেছে সংস্থাটি৷

সুজন আহমেদ বলেন, মানুষ স্বপ্ন বিলাসী, আমিও এর ব্যতিক্রম নই। জানি না চাঁদে যাওয়া কতটা সহজতম হবে? নাই বা গেলাম। যেতে পারে আমার জেনারেশন অথবা তাদের জেনারেশন। বিজ্ঞানীরা সকল ধরনের চেষ্টা-প্রচেষ্টা করে যাচ্ছে চাঁদে মানব জাতির বসবাসের জন্য। হয়তোবা একদিন তারা সফলও হবে। আর সেই আশাতেই চাঁদে জমি কেনা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) চাঁদে জমি কিনে স্ত্রীকে উপহার দিয়েছেন খুলনার এক সংবাদিক।

এ বিষয়ে এম ডি অসীম নামের ওই সাংবাদিক বলেন, ‘আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন রয়েছে বিবাহবার্ষিকীতে স্ত্রীকে স্পেশাল কিছু উপহার দেব। গতবছর জানতে পারলাম ভারতের এক ব্যক্তি বিবাহবার্ষিকীতে স্ত্রীকে চাঁদে জমি কিনে দিয়েছেন। এ ঘটনা জানতে পেরে, আমাদের বিবাহবার্ষিকীতে স্ত্রীকে চাঁদে জমি কিনে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।’

তারও আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর চাঁদের এক একর জমি কিনেছেন এস এম শাহিন আলম ও শেখ শাকিল হোসেন নামের বাংলাদেশি দুই যুবক। তারা সাতক্ষীরায় বসবাস করেন।

প্রসঙ্গত, চাঁদে জমি কেনার জন্য মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’-ই হলো সবচেয়ে জনপ্রিয় কোম্পানি। তাদের তথ্যানুযায়ী, চাঁদে জমির দাম প্রতি একর ২৪ দশমিক ৯৯ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ৪৯৯ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২ হাজার ১২৫ টাকা থেকে ৪২ হাজার ৪৩৭ টাকা।

যদিও পৃথিবীর বাইরে চাঁদ ও মহাকাশের অন্য কোনো গ্রহ পুরো মানবজাতির সম্পদ কোনো ব্যক্তি বা জাতি কিনতে পারেন না। তবে কিছু কিছু ওয়েবসাইট উপহার দেওয়ার জন্য চাঁদে জমি বিক্রি করে থাকেন। এমনকি সার্টিফিকেটও দেন।

বিডি রয়টার্স/এ.সি



আজকের সব খবর