বিদ্যালয়ে প্রাণোচ্ছ্বল রাজশাহীর শিক্ষার্থীরা, মুখরিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

বিদ্যালয়ে প্রাণোচ্ছ্বল রাজশাহীর শিক্ষার্থীরা, মুখরিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান bd royters

রাজশাহী: শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক কর্মচারীদের উপস্থিত থাকলেও পদচারনায় মুখরিত ছিলো না শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো। জাতীয় এসেম্বলীতে কোমলমতি শিক্ষার্থীর মধুর কণ্ঠে শোনা যায়নি আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি। চক আর ডাস্টারের ছোঁয়া লাগেনি ব্লাক বোর্ডে। সবমিলিয়ে বিদ্যালয় গুলো ছিলো প্রাণহীন।

অবশেষে সেই প্রহর শেষে প্রায় দেড় বছর পর সারাদেশের ন্যায় শিক্ষানগরী হিসেবে পরিচিত রাজশাহীর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো পেলো চিরোচেনা রুপ। শিক্ষার্থীর আপন আপন স্কুল কলেজে আসতে পেরে উচ্ছাসিত। অভিভাবকরা পেয়েছে স্বস্তি।

১২ সেম্পেম্বর রোববার রাজশাহী নগরীর বিভিন্ন স্কুল কলেজ ঘুরে শিক্ষার্থীদের উচ্ছাস-আনন্দ আর শিক্ষকদের মিলন মেলা দেখা গেলো। সকাল ১০ টার দিকে নগরীর গভ: ল্যাবরেটরী হাই স্কুলে ঢুকতেই চোখে মিললো শিক্ষার্থীরা স্কুলে প্রবেশের জন্য অপেক্ষা করছে। ততক্ষণে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. মো: হুমায়ন কবির ও জেলা প্রশাসক জলিল স্কুল পরিদর্শনে এসছেন।

স্কুল পোষাকে নিজেকে সজ্জিত হয়ে গেটে অপেক্ষামান শিক্ষার্থীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, দীর্ঘদিন পর স্বশরীরে স্কুল আসতে পেরে খুব ভালো লাগছে। করোনায় আমাদের লেখাপড়ার অনেক ক্ষতি হয়েছে তাই আমরা এখন হতে আরো ভালোকরে পড়ালেখা করে নিজেদের এগিয়ে নিতে চাই বলে জানান।

রাজশাহীর স্কুল-কলেজ গুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি দেখা গেছে। শ্রেণী কক্ষে প্রবেশের আগে শিক্ষার্থীদের শরীরের তাপমাত্র মাপা হচ্ছে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাতধোয়া হচ্ছে। সেই সাথে প্রতিটি শিক্ষার্থীকে মুখে মাস্ক পড়ে আসতে দেখা গেছে।

গভ: ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের শিক্ষকরা জানান, দীর্ঘদিন পর শিক্ষার্থীরা শ্রেণী কক্ষে এসে ক্লাস করছে দেখে খুব ভালো লাগছে। আমারাও খুশি হয়েছি। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে আমাদের কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে বলে জানান।

এমন চিত্র শুধু গভ: ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের নয়, নিউ গভ: ডিগ্রী কলেজ, রাজশাহী কলেজসহ বিভিন্ন কলেজ ঘুরে শিক্ষক-শিক্ষার্থী আর অভিভাবকদের প্রাণ উচ্ছাসিত দৃশ্য চোখে পড়লো। রাস্তা ঘাটে দেখা গেছে শিক্ষার্থীরা আপন আপন প্রতিষ্ঠানের ড্রেস পড়ে দল বেধে, কেউ বা একা হেঁটে আবার কেউ রিকশা বা অটোতে করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছে। শিক্ষার্থীদের পদচারনায় রাজশাহী নগরী এখন মুখরিত হয়ে উঠেছে।

বিদ্যালয় পরিদর্শন কালে রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার ড. মো: হুমায়ুন কবীর সাংবাদিকদের জানান, স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়ে কোন ধরনের ছাড় নেই। সকল কে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুলে আসতে হবে। তিনি আরো বলেন, আজ কেবল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললো আমি যা দেখলাম তাতে মনে হয়েছে শিক্ষার্থীরা সকলেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিষ্ঠানে এসেছে। তিনি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসতে অনুরোধ জানান।

রাজশাহী শিক্ষা অফিস সূত্র বলছে, রাজশাহীতে সরকারি প্রথামকি বিদ্যালয় রয়েছে ১ হাজার ৫৮টি। এই সব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী দুই লাখ ৫৮ হাজার ৯০৬ জন। এছাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় রয়েছে ৫৪৭টি। এর শিক্ষার্থী প্রায় দুই লাখ। সবমিলে প্রায় চার লাখ ৫৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী স্কুল যাচ্ছে।

রাজশাহী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুস সালাম জানান, বিদ্যালয়ের পরিবেশ ঠিক আছে। শিক্ষার্থীর উপস্থিতিও ভালো। অনেক শিক্ষার্থীর সাথে অভিভাবকও এসেছেন। তারা দেখছে- তাদের ছেলে-মেয়েরা কেমন পরিবেশে ক্লাসে বসছে। অভিভাবকরা সন্তষ প্রকাশ করেছে।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস



আজকের সব খবর