র‌্যাবের গুলিতে পা হারোনো সেই লিমন বিয়ের পিঁড়িতে

র‌্যাবের গুলিতে পা হারোনো সেই লিমন বিয়ের পিঁড়িতে

ঢাকা: মাঠে গরু আনতে গিয়ে র‌্যাবের গুলিতে পা হারানো সেই লিমন বিয়ের পিঁড়িতে বসছে। ঝালকাঠির সাতুরিয়া গ্রামের সেই ছাত্রটি এখন ঢাকার সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক।

বিষয়টি নিশ্চিত করে লিমন হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, পরিবারের পছন্দে বিয়ে করছি। বৃহস্পতিবার গায়েহলুদ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। আজ (শুক্রবার) বিয়ে।

তিনি জানান, কনে যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার নওপাড়া এলাকার রাবেয়া বসরী। যশোরে কনের বাড়িতেই বিয়ের অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।

লিমন আরও বলেন, সবসময় গরিব বাবা-মাকে সাহস দিয়েছি। মানুষের সহযোগিতায় পড়াশোনা করেছি। আমি মানবাধিকারকর্মী এবং মিডিয়াকর্মীদের প্রতি চিরকৃতজ্ঞ।

এদিকে বিয়ের বিষয়ে কনে রাবেয়া বলেন, লিমন সীমাহীন সংগ্রাম করে নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তুলেছেন। দাম্পত্য জীবনেও তিনি দায়িত্বশীল হবেন। তাই এ বিয়েতে রাজি হয়েছি।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ২৩ মার্চ বিকেলে মাঠে গরু আনতে গিয়েছিলেন ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া ইউনিয়নের ইঁদরে বাড়ি গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেনের ছেলে লিমন হোসেন। সে সময়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী লিমন র‌্যাবের একটি অভিযানে গুলিবিদ্ধ হয়ে একটি পা হারান।

এ সময় লিমনসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলাও করে র‌্যাব। পরে দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় উঠলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে মামলা দুটি থেকে লিমনকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। তবে র‌্যাবের বিরুদ্ধে লিমনের মা হেনোয়ারা বেগমের দায়ের করা মামলাটি ঝালকাঠি আদালতে এখনও চলমান।

বিডি রয়টার্স/এ.সি



আজকের সব খবর