মাকে অ্যাম্বুলেন্সে ফেলে পালাল ছেলে

মাকে অ্যাম্বুলেন্সে ফেলে পালাল ছেলে

অসুস্থ মাকে চিকিৎসা করাতে অ্যাম্বুলেন্সে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বাড়ি থেকে। কিন্তু পথে অসুস্থ বৃদ্ধা মাকে অ্যাম্বুলেন্সে ফেলে পালিয়ে যায় ছেলে। ছেলের এমন কীর্তিতে অবাক ভারতের পূর্ব বর্ধমানের গলসির নবখণ্ড গ্রামের বাসিন্দারা।

নবখণ্ড গ্রামের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধার নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার ছেলে সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায় হাওড়ার একটি রঙের কারখানায় কাজ করে। চিকিৎসা করাবে বলে অসুস্থ মাকে অ্যাম্বুলেন্সে ৫ অক্টোবর হাওড়া নিয়ে আসেন সুপ্রিয়। হাওড়া এসেই মাকে অ্যাম্বুলেন্সে ফেলে তিনি পালিয়ে যান।

অ্যাম্বুলেন্স চালক জানিয়েছেন, বার বার ফোন করলেও ফোন ধরেননি সুপ্রিয়। তাই রাতভর অপেক্ষার পর ভোরবেলা অসুস্থ বৃদ্ধাকে নিয়ে গ্রামে ফিরে আসেন তিনি। কিন্তু ফিরে এসেও বিপত্তি। বাড়িতে তালা দিয়ে চাবি নিয়ে চলে গিয়েছে ছেলে। তাই গ্রামে ফিরেও ঘরে ঢুকতে পারছিলেন না বৃদ্ধা। পরে গ্রামবাসীরা তালা ভেঙে বৃদ্ধাকে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। গ্রামবাসীরাই তাকে নিয়ে যান স্থানীয় হাসপাতালে।

বৃদ্ধা জানিয়েছেন, হাওড়ায় চিকিৎসা করাতে যাওয়ার আগে একটি ব্যাগে নতুন কাপড়, নগদ ১৬ হাজার টাকা এবং একটি সোনার বোতাম নিয়ে গিয়েছেন তার ছেলে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, মমতার স্বামী মারা যাওয়ার পর সেই চাকরি পান সুপ্রিয়। তিনি মোটা টাকা মাইনে পান বলেও জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা। হাওড়ার দক্ষিণ বাকসাড়ার যে বাড়িতে সুপ্রিয় থাকেন, সেটি মমতার নামে। ছেলের ব্যবহারে অতিষ্ঠ হয়ে হাওড়ার ওই বাড়ি ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে চলে আসেন তিনি।

বিডি রয়টার্স/এ কে জি



আজকের সব খবর