নরসিংদীতে ইউপি নির্বাচনে কর্মকর্তাদের নিয়োগপত্র নিয়ে সমালোচনার ঝড়

নরসিংদীতে ইউপি নির্বাচনে কর্মকর্তাদের নিয়োগপত্র নিয়ে সমালোচনার ঝড়

নরসিংদী: কবে নির্বাচন? দিন বা তারিখ কোনটাই উল্লেখ নেই নির্বাচনী কাজে জড়িত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের নিয়োগ পত্রে। এদিকে নিয়োগপত্রটি দিয়েছেন রির্টানিং কর্মকর্তা ও পলাশ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জোবাইদা খাতুন।

১৮ জুন সকাল ১০টা থেকে পলাশ থানা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের হলরুমে অনুষ্ঠিত হয় নির্বাচনী কাজে জড়িত প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং ও পোলিং অফিসারদের প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণ শেষে রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা: জোবাইদা খাতুন স্বাক্ষরিত নির্বাচনী কাজে জড়িত প্রিজাইডিং, সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও পোলিং অফিসারদের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেন।

নিয়োগপত্র হাতে পেয়ে বাড়িতে গিয়ে দেখেন তাতে ভোট গ্রহনের তারিখ অথবা দিন কোনটাই উল্লেখ নেই। ফলে তারা দ্বিধা দ্বন্ধে পড়ে যান। পরবর্তীতে এ বিষয়টি তারা নির্বাচন কাজে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে ভোট গ্রহনের তারিখ জেনে নেন।

নির্বাচনের মতো এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নিয়োগ কর্মকর্তাকে কোন দিনের জন্য নিয়োগ করা হলো বা ভোট গ্রহনের তারিখ থাকবেনা তা কি করে হয়? এমনি মন্তব্য করছেন নির্বাচনী কাজে কেন্দ্র পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ। এমন কাজ নিয়ে দুই ইউনিয়নের নির্বাচনী কাজে জড়িত কর্মকর্তা ও সচেতন মহলের মাঝে সমালোচনার ঝড় বইছে।

এবিষয়ে রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা: জোবাইদা খাতুনের মোবাইলে কল দিলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তবে নির্বাচনী কাজে জড়িত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, বিষয়টি ভুলবশত হয়ে গেছে। যার ফলে এখন সকলকে আবার মোবাইলে জানিয়ে দেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য আগামী ২১ জুন জেলার পলাশ উপজেলার গজারিয়া ও ডাংগা ইউনিয়নে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

বিডি রয়টার্স/এ.সি