পথে পথে কোরবানির মাংস বিক্রি

ঈদুল আজহার দিন বিকেল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বসেছে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য কোরবানির মাংসের হাট। কম দামে কোরবানির পশুর মাংস কিনতে সেখানে ভিড় করছেন মানুষজন।

ঢাকা: ঈদুল আজহার দিন বিকেল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বসেছে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য কোরবানির মাংসের হাট। কম দামে কোরবানির পশুর মাংস কিনতে সেখানে ভিড় করছেন মানুষজন।

যাদের মাংসের প্রয়োজন তারা ২৫০-৩০০ টাকা কেজি দরে কোরবানির মাংস কিনে নিচ্ছেন ওই স্থানগুলো থেকে। এসব মাংসের ক্রেতাও অবশ্য নিম্ন আয়ের মানুষ।

পবিত্র ঈদুল আজহায় সবার পক্ষে পশু কোরবানি দেয়া সম্ভব হয় না। তাই রাজধানীতে নিম্নবিত্তের অনেকেই কোরবানির মাংসের জন্য ভিড় করেন খিলগাও ফ্লাইওভার সংলগ্ন রেলগেট এলাকায়। এখানে ঈদুল আজহার দিন বসে কোরবানি দেয়া মাংসের বাজার।

সারাদিন বাড়ি বাড়ি ঘুরে সংগ্রহ করা মাংস এখানে বিক্রি করেন নিম্নআয়ের মানুষজন। তাতে নগদে কিছু অর্থ মেলে এমনটাই জানান তারা।পশু কোরবানি দেয়ার সামর্থ্য না থাকলেও, পরিবারের জন্য কম টাকায় মাংস কিনতে পেরে খুশি অনেকেই।

মৌসুমি কসাই শরিফুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত গরু কেটেছি। সেখান থেকে ভাগে প্রায় ১০ কেজির মতো মাংস পেয়েছি। বাড়ির জন্য কিছুটা রেখে বাকিগুলো বিক্রি করতে এসেছি।

শাহিদা বেগম নামের এক নারী বলেন, বাড়ি বাড়ি গিয়ে সংগ্রহ করে পাওয়া মাংস নিয়ে বাজারে এসেছি। কিছুটা বাড়ির জন্য রেখে বাকিগুলো বিক্রি করে দিব।

ঈদের দিন মাংস বেচে বাড়তি টাকা আয় করতে পেরে খুশি বিক্রেতারাও। তাই প্রতি বছর কোরবানির ঈদে ক্রেতা-বিক্রেতার পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে খিলগাঁওয়ের এই মাংসের বাজার।

কোরবানির মাংস হাতবদল হয় দুই দফা। প্রথমে নিম্ন আয়ের মানুষের কাছ থেকে কম দামে কিনে নেন কিছু মৌসুমি ব্যবসায়ী। পরে বাড়তি লাভে তা বিক্রি করেন সাধারণ ক্রেতা ও রেস্তোঁরা ব্যবসায়ীদের কাছে।

বিডি রয়টার্/এ.সি