রাজধানী পশুর হাটে নেই বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উদ্যোগ

কোরবানি ঈদের আগে থেকেই রাজধানীর পশুর হাটগুলোতে আসতে থাকে লাখ লাখ গরু, ছাগলসহ অন্যান্য দেশি-বিদেশি পশু। এসব পশুর প্রতিদিনের বর্জ্যের পরিমাণও কম নয়।

ঢাকা: কোরবানি ঈদের আগে থেকেই রাজধানীর পশুর হাটগুলোতে আসতে থাকে লাখ লাখ গরু, ছাগলসহ অন্যান্য দেশি-বিদেশি পশু। এসব পশুর প্রতিদিনের বর্জ্যের পরিমাণও কম নয়। কিন্তু প্রতিটি হাটেই বর্জ্য অপসারণে হাট ও সিটি করপোরেশনর উদাসীনতা স্পষ্ট চোখে পড়ে।

হাটে আগতরা বলছেন, দুর্গন্ধে টেকা মুশকিল। আছে মশা-মাছির উপদ্রবও। হাটে ময়লা-আবর্জনা ফেলার নির্দিষ্ট কোনো জায়গাও নেই। তাই আশপাশেই স্তূপ করে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

হাটের বেশ কয়েক জায়গায় হাসিল সংগ্রহের বুথ স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কোনো দায় তাদের নেই বলে জানালেন ইজারদারদের প্রতিনিধিরা।

রাজধানীর বিভিন্ন হাটে আসা গরুর ব্যাপারী ও তাদের প্রতিনিধিদের সাথে কথা বলে জানা যায়,  সিটি করর্পোরেশন বা হাট কর্তৃপক্ষের কেউ খোঁজও নেয় না এসব ব্যাপারে। তারা যেখানে গরু বা ছাগল বেঁধে রাখছেন, তার আশেপাশেই ফেলছেন প্রতিদিনের বর্জ্য।

এদিকে, হাটগুলোতে প্রতিদিন ভিড় করেন অসংখ্য ক্রেতা-বিক্রেতা। কিন্তু তাদের জন্য নেই টয়লেট ও পানির ব্যবস্থা। এতেও চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন আগতরা।

পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের (পবা) সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী মো. আবদুস সোবহান বলেন, সিটি করর্পোরেশন যা বলে, বাস্তবে তা দেখা যায় না।

আগামীকাল বুধবার (২১ জুলাই) পবিত্র ঈদুল আজহা পালিত হবে।

বিডি রয়টার্স/এ.সি