আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে অনিয়মে প্রধানমন্ত্রী হতবাক

আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পে অনিয়মে প্রধানমন্ত্রী হতবাক

ঢাকা: আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীনদের জমি ও ঘর উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চলতি বছরের জানুয়ারি ও জুনে দুই দফায় প্রায় ১ লাখ ২৩ হাজার ঘর উপহার দেওয়া হয়।

কিন্তু কয়েকমাস না যেতেই ভেঙে পড়ে ভিটি, ফাটল ধরে মেঝে ও দেয়ালে। এমন খবর পেয়ে ক্ষুব্ধ স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। ঘর নির্মাণে অনিয়মে জড়িতদের শনাক্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি সূত্র জানিয়েছে, এ দুর্ভোগের নেপথ্যে স্থানীয় প্রশাসনের অবহেলার কথা জেনে হতবাক হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। অনিয়মে কারা জড়িত জানতে চেয়েছেন। দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশও দিয়েছেন তিনি।

চলতি বর্ষা মৌসুমে ২২টি জেলার ৩৬টি উপজেলায় হস্তান্তর করা ঘর নিয়ে গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দুর্ভোগের নানা খবর উঠে আসে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নজরেও আসে বিষয়টি। যার সূত্র ধরে প্রাথমিক তথ্য নিয়ে বগুড়া, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, হবিগঞ্জ, সিলেটসহ কয়েকটি জেলায় ঘর পাওয়া মানুষগুলোর দুর্ভোগের সত্যতা পেয়েছেন আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তারা।

ইতোমধ্যে অনিয়মে যুক্ত অভিযুক্ত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া শুরু হয়েছে। প্রকল্পের কর্মকর্তারা জানান, ঘরগুলো নির্মাণের আগে স্থানীয় প্রশাসনকে নীতিমালা হস্তান্তর করা হয়েছিল। সেটা অনুসরণ করা হলে এমন অভিযোগ আসতো না।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস বলেন, কিছু অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। দায়িত্বপ্রাপ্ত স্থানীয় প্রশাসনের পাঁচ কর্মকর্তাকে ইতোমধ্যে ওএসডি করা হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ঘর নির্মাণে সম্পৃক্ত সাবেক ও বর্তমান যে পাঁচ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে ওএসডি করা হয়েছে, তাদের দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যে প্রশাসনিক ব্যবস্থাও শুরু হয়েছে। একজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন মামলা দায়ের করেছে। অন্যদেরও খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে। সত্যতা পেলে প্রশাসনিক ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি রয়টার্স/এ.সি