আসামিদের সঙ্গে সেলফি, বিতর্কিত ওসি ক্লোজড

পটুয়াখালী: আসামিদের সঙ্গে সেলফি তোলার অপরাধে বাউফল থানার বিতর্কিত ওসি মোস্তাফিজুর রহমানকে ক্লোজ করা হয়েছে।মঙ্গলবার তাকে ক্লোজ করে পটুয়াখালী পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।তবে জেলা পুলিশের দাবী এটি রুটিন বদলী।

পটুয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মাহফুজুর রহমান বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মোস্তাফিজুর রহমান গত বছরের (২০২০ সালে) ফেব্রুয়ারি মাসে বাউফল থানায় যোগদান করেন। তাকে ক্লোজ করার খবরে নানা মহলে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

গত কয়েক দিন আগে ওসি মোস্তাফিজুর রহমান দ্রুতবিচার আইনে দায়েরকৃত মামলাসহ একাধিক মামলার আসামিদের সঙ্গে সেলফি তুলে শিরোনাম হন। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে তদন্ত শেষে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়।

এদিকে ক্লোজ হওয়ার পর ওসি মোস্তাফিজুর রহমান তার ফেসবুক পেজে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন- বাউফল থানায় যোগদানের পর অনেক অভিজ্ঞতা হয়েছে। পরবর্তী কর্মস্থলে এসব অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চেষ্টা করব।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বাউফল থানায় যোগদানের পর থেকেই নানান কর্মকাণ্ডে বিতর্কিত হয়ে উঠেন। তিনি যোগদানের কয়েক দিন পর বাউফল থানার সামনে যুবলীগ নেতা তাপস খুন হন। এর কয়েক দিন পর কেশবপুর ইউনিয়নে সরকারি দলের দুই পক্ষের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি ইমন তালুকদার ও তার চাচাতো ভাই ইশাত তালুকদার খুন হন।

ঘটনাটি লিখিতভাবে ওসি মোস্তাফিজুর রহমানকে জানানো হলেও তিনি কোনো পদক্ষেপ নেননি। যার ফলে পরদিন ওই জোড়া খুনের ঘটনা ঘটে।

এছাড়াও তার বিরুদ্ধে পৌর শহরে সরকারি দলের একটি পক্ষকে মদদ দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। যে কারণে বাউফলে সরকারি দলের দুইপক্ষের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তিনি যোগদান করার পর পৌর শহরসহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চুরি, ডাকাতি ও খুনসহ আইনশৃক্সখলার চরম অবনতি ঘটতে থাকে।

বিডি রয়টার্স/এ.সি