সরকারের উচিত ‘ব্যর্থতার দায়ে’ পদত্যাগ করা: জাফরুল্লাহ

সরকার হিন্দু-মুসলমান সবারই জানমালের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। তিনি বলেন, সরকারের উচিত পদত্যাগ করে জাতীয় সরকার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা।

রোববার (১৭ অক্টোরব) দুপুরে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মন্দিরে হামলা চেষ্টার ঘটনাস্থল পরিদর্শনকালে সংবাদমাধ্যমকে এসব কথা বলেন তিনি।

ওই সংঘর্ষে নিহত চারজনের পরিবারের খোঁজ-খবর নেন এবং তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে কবর জিয়ারত করেন ডা. জাফরুল্লাহ। একইসঙ্গে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ এবং বেশ কয়েকটি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও কথা বলেন তিনি।

সেসময় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী সংবাদমাধ্যমকে জানান, ভারতে সরকারের যে বন্ধুরা রয়েছে, তাদের অবস্থা এখন টলমলে। তারা ভাবছে, বাংলাদেশে আওয়ামী লীগ ছাড়া এখন অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে কিনা। সেটা হাসিনা বুঝতে পেরে দাবি করছে, তিনি ছাড়া আর কেউ রক্ষা করতে পারবেন না। কিন্তু তিনি ব্যর্থ হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, তাই জাতীয় সরকার গঠন করে, নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের এনে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করে সুষ্ঠু নির্বাচন করে দেশকে ভালো রেখে আমরা একত্রে থাকতে চাই।

দেশের গোয়েন্দা বাহিনী ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনীর অধীনস্থ কর্মচারী দাবি করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, যখন নরেন্দ্র মোদির আগমনকে ঘিরে এ দেশের মৌলভিরা আন্দোলন করছিল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে চেয়েছিল; তখন একাধিকবার দেখা করেছিলেন; বিষয়টি ভারতীয় গোয়েন্দা বাহিনী ভালো চোখে দেখেনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দেশের সকল মন্দিরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার কথা বললেও তিনি ব্যর্থ হয়েছেন।

এসময় ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সঙ্গে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু, ৬৯’ শহীদ আসাদের ছোট ভাই ডা. নুরুজ্জামান, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি গোলাম মোস্তফা প্রমুখ।

এদিকে, বাম গণতান্ত্রিক জোট, কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ হাজীগঞ্জের ঘটনাস্থলগুলো পরিদর্শন করেন।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস



আজকের সব খবর