গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগে পরিবেশ কর্মকর্তার স্ত্রী আটক

গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগে পরিবেশ কর্মকর্তার স্ত্রী আটক bd royters

সিলেট: বাসায় গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেনের স্ত্রী ফারহানা আহমেদ চৌধুরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৩ জুন) বিকেলে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরাণ থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, সিলেট নগরের শাহজালাল উপশহরের ই-ব্লকে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক এমরান হোসেনের বাসার বাথরুমে কিশোরী গৃহকর্মী রুনা আক্তারকে তালাবদ্ধ করে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া যায়। নির্যাতনের সময় তার শরীরে মরিচের গুড়োও ছিটিয়ে দেয়া হয়।

বুধবার দুপুরে বাথরুমে তালাবদ্ধ রুনা আক্তারের চিৎকার ও কান্না শুনে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে শাহপরাণ থানার একদল পুলিশ এমরান হোসেনের বাসায় গিয়ে তালাবদ্ধ বাথরুম থেকে রুনা আক্তারকে উদ্ধার করে। পরে অধিদপ্তরের পরিচালক এমরান হোসেনের স্ত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে শাহপরাণ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন বলেন, সকালে জৈন্তাপুরে একটি অভিযানে যাই। গতকাল থেকে মেয়েটি বলছিল বাড়িতে যাবে। যার মাধ্যমে মেয়েটিকে আনা হয়েছিল তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। সে আজকে রাতে বা কাল সকালের মধ্যে আসার কথা। তবে এর ভেতরেই এমন ঘটনার কথা শুনে আমি বাসায় এসেছি।

তবে পরিবেশ কর্মকর্তার স্ত্রী ফারহানা আহমদ চৌধুরী বলেন, গতকাল রাত থেকে সে ভয় পাচ্ছে আর বলছে কেউ নাকি তাকে স্পর্শ করছে। সকালেও একই কথা বলে বাথরুমে ঢুকে কান্না শুরু করে। ওই সময় আমি গিয়ে জিজ্ঞেস করলে মরিচ দেওয়ার কথা বলে। মরিচ দিলে নাকি ওই অদৃশ্য বিষয়টি চলে যাবে। আমি দেইনি। পরে সে নিজেই নিজের শরীরে মরিচ দেয়।

শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, মেয়েটি কথা ও ওই নারী কথায় মিল নেই। সেজন্য জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে থানায় আনা হয়েছে। পরো বিস্তারিত জানাতে পারবো।

 

বিডি রয়টার্স/এসএস